মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

ইউনিসেফ জিওবি প্রজেক্ট

স্বাস্থ্য, স্যানিটেশন, নিরাপদ পানি নিশ্চিত করনের জন্য জিওবি ইউনিসেফ প্রকল্প সহযোগীতার প্রয়োজন।

জিওবি ইউনিসেফ প্রকল্প wash কার্যক্রমে তহবিলের প্রয়োজনীয়তাঃএলাকার দরিদ্র জনগোষ্টীর স্বাস্থ্য, শিক্ষা, স্যানিটেশন, নিরাপদ পানি নিশ্চিত করনের জন্য ইউনিয়নের নিজস্ব অর্থ না থাকা ও দরিদ্র মানুষকে উপরোক্ত কার্যক্রমের সেবার মাধ্যমে স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য জিওবি ইউনিসেফ প্রকল্পে অর্থ প্রয়োজন।

 

কার্যক্রমের উদ্দেশ্য ও ফলাফলঃ

নং

কাজ

উদ্দেশ্য

ফলাফল

১।

নলকূপ স্থাপন

গভীর ও অগভীর

দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে সুপেয় পানি সরবরাহ। সুবিধা বঞ্চিত পরিবারদের পানির উৎস প্রদান নিশ্চিত করন।

প্রায় ১২০টি পরিবার সুপেয় পানি ব্যবহার নিশ্চিত করন, স্বাস্থ্য সুরক্ষা

২।

রিং স্লাব সরবরাহ

দরিদ্র  ও সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে রিং স্লাব সরবরাহ। পর্দার সাথে পায়খানা ব্যবহার নিশ্চিত করন, স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও নিজেদের আর্থিক অংশ গ্রহন।

স্বাস্থ্য সম্মত পায়খানা ব্যবহারের ফলে  স্বাস্থ্য সুরক্ষা ডায়েরিয়া সহ মারাত্তক রোগ থেকে আত্মরক্ষা ও প্রায় ৭০ টি পরিবার স্যানিটারী ল্যাট্রিন ব্যবহারের সুযোগ পাবে।

৩।

নলকূপের গোড়া বাধানো

ওয়াটার লগিং বন্ধের কারনে নিরাপদ পানি নিশ্চিত ও ব্যবহার

নিরাপদ পানি  ব্যবহারের ফলে  স্বাস্থ্য সুরক্ষা । ডায়েরিয়া সহ মারাত্তক রোগ থেকে আত্ম রক্ষা। প্রায় ৪৪টি পরিবার এর সুফল পাবে।

৪।

হাত ধোঁয়ার প্রযুক্তি ও ব্যবহার

বেশির ভাগ রোগ হাত অপরিষ্কার থাকার কারনে সৃষ্টি হচ্ছে। রোগ প্রতিরোধের জন্য হাত ধোঁয়ার প্রযুক্তি ব্যবহার।

নিয়মিত হাত ধোঁয়ার মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধে সহায়ক ভুমিকা রাখছে  এবং প্রযুক্তিটি দৃষ্টিনন্দন হওয়ায় অনেকে দেখে হাত ধুতে উদ্বুদ্ধ হবে। প্রায় ১৮০ টি পরিবার এর সুফল পাবে।

৫।

উম্মুক্ত সভা

জনগন স্বাস্থ্য শিক্ষা, স্যানিটেশন নিরাপদ পানি সহ ইউনিযন পরিষদের যাবতীয় কার্যক্রম সর্ম্পকে স্বচ্ছতার সাথে অবহিত করা হবে।

জনগন তাদের বিভিন্ন অধিকার সর্ম্পকে জানবে, উন্নয়ন মতামত সরাসরি জানাতে পারবে। এত করে সকল কার্যক্রমে স্বচ্ছতা ও জবাব দিহিতা তৈরি হবে।

৬।

কেয়ার টেকার প্রশিক্ষণ

বিভিন্ন উৎস গুলি  তৈরির পর সচল রাখার বিষয়গুলি জানা ও ছোটখাটো মেরামতের বিষয়ে ধারনা দেওয়া।

উৎসগুলো সচল রাখার জন্য সব বিষয়ে তাৎক্ষনিক সিদ্ধান্ত নেওয়া কম সময়ে ও অর্থে বাস্তবায়ন করা। ১২ জন কেয়ারটেকার প্রশিক্ষণ পাবে।

৭।

আনুসাঙ্গিক খরচ

কার্যক্রম বাস্তবায়ন করার জন্য তাৎক্ষনিক ও পরিকল্পনা বিষয় ভিত্তিক বিভিন্ন জিনিসের প্রয়োজন হয়।

প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য আনুসাঙ্গিক খরচ থাকায় অন্য বিষয়ের উপরে অর্থনৈতিক প্রভাব পড়ে না। এতে করে স্বচ্ছতার ভিত্তিতে প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

উপরে বর্ণিত ফলাফল অর্জন করতে কি ধরনের কর্মকান্ড গ্রহন করা হবে তার সংক্ষিপ্ত বিবরন নিম্নে দেয়া হলোঃ

          ক) গভীর নলকুপ স্থাপন।

          খ) অগভীর নলকুপ স্থাপন।

          গ) রিং স্লাব সরবরাহ ও স্থাপন।

          ঘ) নলকুপের গোড়া পাকা করন।

          ঙ) হাতধোঁয়ার প্রযুক্তি সরবরাহ।

          চ) কেয়ার টেকার প্রশিক্ষণ।

          ছ) উম্মুক্ত ও বিভিন্ন কমিটির সভা।

 

উপসংহারঃ

          - অত্র এলাকার দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের সদস্যগণ নিরাপদ পানি , স্যানিটারী ল্যাট্রিন ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে না চলার কারনে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে শারিরীক অর্থনৈতিক ভাবে ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছে। এই সুবিধা গুলি নিশ্চিত করা গেলে জনগনদের অনেক রোগ থেকে মুক্ত করা সম্ভব। অর্থনৈতিক অস্বচ্ছলতার কারনে ব্যক্তিগত ও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে এই সুবিধা যথেষ্ট পরিমান বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে না। সার্বিক দিক বিবেচনা করে স্যানিটেশন, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পানি সরবরাহ (জিওবি-ইউনিসেফ ) প্রকল্প থেকে অর্থ বরাদ্দ পেলে জনগনের আরো সুবিধা প্রদান ও অভ্যাস পরিবর্তন করা সম্ভব হবে।


Share with :

Facebook Twitter